বেনিয়ম শুধু নয়, আপনার বেখেয়ালেও বাড়তে পারে ভুঁড়ি –

বেনিয়ম শুধু নয়, আপনার বেখেয়ালেও বাড়তে পারে ভুঁড়ি -

কোনো একদিন হঠাৎ আবিষ্কার করলেন আপনার মধ্য প্রদেশ গেছে অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে। নিশ্চয় পড়ি কী মরি করে আপনি খাওয়া-দাওয়া ভুলে যাবেন।

কারণ আপনার একমাত্র লক্ষ্য হলো যে কোনো প্রকারে চর্বি (belly fat) গলানো। হার্ট ব্লক, হার্ট অ্যাটাক, কিডনির সমস্যা, মেরুদণ্ডের সমস্যা, হাঁটুর ব্যথাসহ নানা সমস্যা আসতে থাকে শরীরে মেদ (belly fat) বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে।

আর একবার তা জমতে শুরু করলে তাকে নড়ানো সহজ কাজ নয় তা সবাই জানেন। কিন্তু শুধুই যে খাওয়া-দাওয়া নিয়ে অনিয়ম করলেই এমনটি হয় তা কিন্তু নয়।

আমাদের দৈনন্দিন কাজের ক্ষেত্রে কিছু সাধারণ অভ্যেসের ফলেও এমনটা হয়ে থাকে। সুস্থ জীবনের জন্য পেটে যাতে চর্বি (belly fat) না জমে সেদিকে লক্ষ্য রেখে কিছু বিষয় মাথায় রাখলেই হবে।

আরো পোস্ট- আপনি করোনাক্রান্ত, রয়েছে নবজাতক! এভাবে নিন যত্ন

১. গরমের সময় আমরা অল্প কিছু ক্ষেত্রে পরিশ্রম করলেই দরদর করে ঘামতে থাকি বা হাঁপিয়ে ওঠেন অনেকে। সেই সময়ে ক্লান্তি কাটাতে চোখ আটকে যায় সফট ড্রিংকসে (cold drinks)। এসব ড্রিংকস প্রচুর পরিমাণে শর্করাতে সমৃদ্ধ পানীয় হওয়ায় (cold drinks) খুব সহজেই জমতে থাকে মেদ আপনার অজান্তেই। তাই তা পান করলেও অল্প করেই পান করবেন।

২. পেটে মেদ (belly fat) জমার আরেকটা কারণ যা দায়ী তা হলো অনেকক্ষণ সময় ধরে বসে থাকা। অফিসের কাজে আমরা এমনই ডুবে যাই যে একটানা চার-পাঁচ ঘণ্টা বসেই সময়ে চলে যায়।

কিন্তু বুঝতেই পারি না এত দীর্ঘ সময় বসার ফলেই পেটের মেদ যাচ্ছে বেড়ে। তাই প্রতি ২০ মিনিট অন্তর বা ১ ঘন্টা পরপর হলেও একটু সোজা হয়ে দাঁড়ান।

হাঁটাহাঁটি করতে পারলে খুবই ভালো। কিন্তু এটা যদি না পারেন তবে প্রতি ঘণ্টায় ১ মিনিট সোজা হয়ে বসুন আর পা দোলান।

৩. পেট ২ ঘন্টার বেশি খালি রাখা উচিত নয় অনেকেই জানি। একটু পর পর কিছু না কিছু খেতেই বার বার অনেকেই জাঙ্কফুড (junk food) কিংবা স্ন্যাক জাতীয় রিচ ফুড খেয়ে ফেলেন। এগুলি স্বাস্থ্যের পক্ষে মোটেও ভালো নয়।

লাল-নীল-গেরুয়া…! ‘রঙ’ ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা ‘খাচ্ছে’? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম ‘সংবাদ’!

‘ব্রেকিং’ আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের।

কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে ‘রঙ’ লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে ‘ফেক’ তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই ‘ফ্রি’ নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

শরীর স্বাস্থ্য – Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper
2021-05-01 02:08:03
Source link

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *