স্ট্রোকের ভয়াবহতা কমায় ভিটামিন ডি

স্ট্রোক যেকোনো মানুষের জীবনে ভয়াবহ দুঃস্বপ্ন নিয়ে হাজির হতে পারে। বড় ধরনের স্ট্রোকে মানুষের এক বা একাধিক অঙ্গ অক্ষম হয়ে যেতে পারে। আবার কখনো কখনো এই স্ট্রোকই মানুষের অকালমৃত্যু ঘটায়। তাই স্ট্রোক প্রতিরোধে আমরা আগে থেকেই কিছু ব্যবস্থা নিতে পারি। আর এটি প্রতিরোধের সবচেয়ে সহজ সমাধান ভিটামিন ডি। নতুন এক গবেষণায় দেখা যায়, স্ট্রোকে মৃত্যুর হার কমাতে ভিটামিন ডি সবচেয়ে কার্যকর। তাই প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় থাকা উচিত ভিটামিন ডি-সমৃদ্ধ খাবার। দুধ, দুগ্ধজাত খাবার, ডিমের কুসুম, কডলিভার অয়েল ও সামুদ্রিক মাছের তেলে আছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ডি। সবজির তেল ইস্টেও আছে ভিটামিন ডি। আর ভিটামিন ডি পাওয়ার সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক উৎস সূর্যরশ্মি। অন্য এক গবেষণায় দেখা যায়, ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ মানুষ এই ভিটামিন ডি-স্বল্পতায় ভোগে। ষাট বছর বা তার কম বয়সী মানুষের জন্য প্রতিদিন খাদ্যে থাকা উচিত ১০০০ আন্তর্জাতিক ইউনিট(IU) এবং ষাটোর্ধ্ব মানুষের বেলায় এই পরিমাণটা হবে ১২০০ আন্তর্জাতিক ইউনিট। তাই স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ভিটামিন ডি একটু হলেও রাখুন।

সিদ্ধার্থ মজুমদার
সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, মে ০৫, ২০১০

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *