ব্যায়াম : দড়ি লাফানো

ব্যায়াম : দড়ি লাফানো

শুধু খেলাধুলার অংশ নয়, ব্যায়াম হিসেবেও দড়িলাফ বেশ কার্যকর। দৌড়ানো বা জগিংয়ের চেয়ে দড়িলাফে বেশি ক্যালরি খরচ হয়, গবেষণায় এমনটাই জানা গেছে। ১০ মিনিটের দড়িলাফে গড়ে ১০০ ক্যালরি খরচ করা সম্ভব। এটি কার্ডিও এক্সারসাইজ। দড়িলাফে একই সঙ্গে হাত-পা ও শরীরের অন্যান্য অংশের মাংসপেশির ব্যায়াম হয়। ভারসাম্যের ব্যায়াম হিসেবেও দড়িলাফ বেশ ভালো। এ ধরনের ব্যায়ামের অভ্যাস করলে হাড়ক্ষয়ের মতো সমস্যার আশঙ্কা কমে যায়। নানাভাবে দড়িলাফের কৌশল রপ্ত করলে ব্যায়ামে বৈচিত্র্যও আসবে।

সুস্থ থাকার জন্য ব্যায়াম হিসেবে দড়িলাফ বেছে নিতে পারেন, তবে কিছু বিষয় খেয়াল রাখুন। যেমন

 সুবিধাজনক আকারের দড়ি ব্যবহার করুন। মসৃণ তলে দড়িলাফ করা ভালো। তবে কংক্রিটের শক্ত মেঝেতে খুব জোরে না লাফানোই ভালো। পিচ্ছিল স্থান কিংবা ইট-পাথর পড়ে থাকা স্থান এড়িয়ে চলুন। ঘরে এ ব্যায়াম করতে চাইলে এমন একটি জায়গা বেছে নিন, যেখানে দড়িতে লেগে কোনো কিছু পড়ে যাওয়ার বা ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা নেই। ছোট স্থানে একাধিক ব্যক্তি একসঙ্গে এ ব্যায়াম করবেন না।

 পর্যাপ্ত আলোতে ব্যায়াম করুন। ব্যায়ামে অভ্যস্ত হয়ে ওঠার আগে দ্রুতগতিতে ব্যায়াম করার চেষ্টা করবেন না, দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। অভ্যস্ত হওয়ার পরও ক্যালরি ক্ষয়ের জন্য অতিরিক্ত সময় ধরে এ ব্যায়াম করা যাবে না। এ ছাড়া যাঁরা হাঁটু, কোমর বা গোড়ালির ব্যথায় ভুগছেন, তাঁদের এ ব্যায়াম না করাই ভালো। গর্ভাবস্থায় এ ধরনের ব্যায়াম করা উচিত নয়।

ডা. রাফিয়া আলম, স্কয়ার হাসপাতাল
সূত্র – প্রথম আলো।

2 thoughts on “ব্যায়াম : দড়ি লাফানো

  1. লিঙ্গ কত বছর পর্যন্ত লম্বা হয়। আমার বয়স 20+ এখনো কি বড় হবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *