বিশ্বে প্রতিবছর ক্যান্সার ধরা পড়া মানুষের সংখ্যা বেড়ে ১ কোটি ৪০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্রিউএইচও) এ পরিসংখ্যান দিয়েছে।

২০১২ সালের উপাত্ত বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ক্যান্সার আক্রান্তের হার ২০০৮ সালের পরিসংখ্যান ছাড়িয়ে গেছে। ওই বছর ক্যান্সার আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ছিল ১ কোটি ২৭ লাখ। তাছাড়া, সে সময় ক্যান্সারে মৃত্যুও বেড়েছিল ৭৬ লাখ থেকে ৮২ লাখ পর্যন্ত।

শিল্পোন্নত দেশগুলোর দেখাদেখি উন্নয়নশীল বিশ্বে জীবনধারার দ্রুত পরিবর্তন ক্যান্সারের হার বাড়িয়ে দিচ্ছে। ধূমপান, স্থূলতার হার এমনকি মানুষের বেশিদিন বাঁচাটাও ক্যান্সার বেড়ে যাওয়ার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বিশ্বব্যাপী ধূমপান থেকে সৃষ্ট ফুসফুস ক্যান্সারেই মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে সবচেয়ে বেশি। এ সংখ্যা ১৮ লাখ – যা অন্যান্য ক্যান্সার আক্রান্তের মোট সংখ্যার ১৩ শতাংশ।

ডব্লিউএইচও বলছে, ফুসফুস ক্যান্সার ছাড়াও বিশ্বে এক লাফে বেড়েছে স্তন ক্যান্সার। ২০০৮ সাল থেকে এ ক্যান্সার আক্রান্তের হার এবং মৃত্যুহার দুটোই বেড়েছে। ১৪০ টি দেশে নারীরা এখন এ ক্যান্সারই সবেচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে।

ক্যান্সার এ হারে বাড়তে থাকলে ডব্লিউএইচও’র হিসাবমতে, ২০২৫ সাল নাগাদ বিশ্বে ক্যান্সার আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা আনুমানিক ১ কোটি ৯০ লাখ ছড়িয়ে যাবে।

সূত্রঃ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম