কাজের সময় চুলের সাজ

যে রাঁধতে জানে, সে নাকি চুলও ভালো বাঁধতে জানে। কিন্তু যাঁদের ঘর, অফিস দুটিই সামলাতে হয়, তাঁরা তাঁদের বেয়াড়া চুলগুলোকে কীভাবে সামলান বলুন তো?
সামিয়া আফরিন, টপ অব মাইন্ড অ্যাডভারটাইজিং ফার্মের মিডিয়া কো-অর্ডিনেটর। পাশাপাশি করেন উপস্থাপনা। ঘর সামলিয়ে সকালে ঠিক সময়ে অফিসে পৌঁছাতে রোজই কাঠখড় পোহাতে হয়। চুলের দিকে আলাদা করে নজর দেওয়ার সময় হয় না তাঁর। তাই চুলটাকে সুন্দর একটা কাট দিয়ে নেন কয়েক দিন পরপর। ছোট চুলে লেয়ার কাটে খোলাই রাখেন তিনি। খুব কম সময়ই চুল বাঁধেন।
আপনাকেও যদি রোজ কর্মক্ষেত্রে ছুটতে হয়, তবে খুব কম সময়ে চুল সাজানোর কিছু সহজ টিপস মাথায় রেখে দিতে পারেন। হোটেল ওয়েস্টিন ঢাকার স্পা ম্যানেজার নাজমুন নাহার বলেন, সকালে অফিসে যাওয়ার আগে চুলের জন্য কিন্তু খুব বেশি সময় দেওয়ার দরকার নেই। চুলটাকে আপনার চেহারার আকার ও ধরন অনুযায়ী সুন্দর একটা কাট দিয়ে নিলে আপনার ব্যস্ত সময়ের অনেকটাই বেঁচে যায়।
 প্রায় সবাইকে লেয়ার কাটে মানিয়ে যায়। আপনার পছন্দ অনুযায়ী বড়-ছোট কাট দিতে পারেন। এই কাট রেখে চুলকে ব্লোড্রাই করে নিচের দিকে হালকা কোঁকড়াভাব আনতে পারেন। ভলিউম কাটের সঙ্গেও এভাবে খোলা রাখতে পারেন চুল। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে বেশ ভালোই মানিয়ে যাবে আপনাকে।
 যাঁদের চুলে ব্যাংগস কাট, তাঁরা সামনের দিকে কয়েকটি চুল ছড়িয়ে দিন। পেছনের দিকের চুলটা ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে করে নিন একটা আলতো খোঁপা। কিছুটা চুল এর নিচে ছেড়ে রাখলেও ক্ষতি নেই।
 অফিসে ফতুয়া পরলে উঁচু করে পনিটেইল করে নিতে পারেন। তারপর পনিটেইল থেকে চুল নিয়ে দুটি বেণি করে কান বরাবর এনে ক্লিপে আটকে নিন।
 করপোরেট লুক আনতে চুলে করতে পারেন নিচু করে পনিটেইল। একপাশে সিঁথি করে পুরো চুলটাকে চ্যাপটা করে করে নিতে পারেন পনিটেইল, তার পেছনে সুন্দর একটা ঝুঁটি।
এ তো গেল সকালের চুলের সাজ। এবার বাইরে বের হওয়ার পালা। বাইরে বের হওয়ার আগে চুলে রোদ প্রতিরোধক স্প্রে বা জেল ব্যবহার করার পরামর্শ দেন কিউবেলার কর্ণধার ও রূপবিশেষজ্ঞ ফারজানা আরমান। ব্যাগে রেখে দিন একটি চিরুনি। চিরুনি যেন একটু মোটা ও কোমল দাঁতের হয়। ধুলাবালি, রোদ আর ঘামে চুল প্রতিদিনই নিষ্প্রাণ হয়ে যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে রোজ শ্যাম্পু করলেও ক্ষতি নেই। তবে বাজার থেকে শ্যাম্পু কেনার সময় রেগুলার শ্যাম্পুগুলো কিনে নেবেন খেয়াল করে। যাঁদের চুল বেশি শুষ্ক, তাঁরা রাতে তেল গরম করে মাথায় লাগিয়ে ম্যাসাজ করে নিন ১০ মিনিট। সকালে শ্যাম্পু করে নিন। ছুটির দিনে একটু সময় বের করে নিন চুলের যত্নে। সপ্তাহে একদিন চুলে লাগিয়ে নিন একটা প্রোটিন প্যাক।
 টক দই ও ডিম একসঙ্গে মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে নিন।
 তৈলাক্ত ত্বকের ক্ষেত্রে টক দইয়ের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এটি খুশকি দূর করতেও কার্যকরী।
 যাঁদের চুল বেশি শুষ্ক, তাঁরা পাকা কলা পেস্ট করে চুলে লাগালে উপকার পাবেন।
 সম্ভব হলে প্রতি মাসে একবার পারলারে গিয়ে একটি হেয়ার স্পাও করিয়ে নিতে পারেন।

শান্তা তাওহিদা
মডেল: নাবিলা রহমান, সাজ: ওয়েস
সূত্র: দৈনিক প্রথম আলো, ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০১০

3 thoughts on “কাজের সময় চুলের সাজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *