আমলকীতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। আমলকীর তেল নিয়মিত ব্যবহার করলে শুধু চুল পড়াই বন্ধ হয় না, পাশাপাশি চুল হয় ঝলমলে। খুশকি দূর করলেও আমলকীর তেলের জুড়ি নেই।

চুলের যত্নে ঘরেই তৈরি করে নিতে পারেন আমলকীর তেল। জেনে নিন কীভাবে তৈরি করবেন-

যা যা লাগবে
আমলকী
নারিকেল তেল
অলিভ অয়েল

যেভাবে তৈরি করবেন


কয়েকটি তাজা আমলকী থেকে বিচি বের করে নিন। আমলকীর টুকরা গ্রিন্ড করে রস বের করুন।

একটি পাত্রে ২ ভাগ আমলকীর রসের সঙ্গে ১ ভাগ নারিকেল তেল মেশান। সামান্য অলিভ অয়েল মেশাতে পারেন। তবে তেলের পরিমাণ যেন আমলকীর রসের চাইতে বেশি না হয় সেদিকে লক্ষ রাখবেন।

মিশ্রণটি চুলায় মাঝারি আঁচে রাখুন ৫ থেকে ১০ মিনিট। তেল নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন।

ছেঁকে বোতলে সংরক্ষণ করুন আমলকীর তেল।

আমলকীর তেলের উপকারিতা

  • গোসল করার ৪৫ মিনিট আগে আমলকীর তেল মাথার তালুতে ম্যাসাজ করুন। এটি চুল পড়া বন্ধ করতে সাহায্য করবে।
  • অকালে চুল পাকা রোধ করে ভেষজ এ তেল।
  • ১ কাপ পানিতে ১ টেবিল চামচ আপেল সিডার ভিনেগার, ১ চা চামচ মধু ও ১০ ফোঁটা আমলকীর তেল মেশান। শ্যাম্পু করার পর দ্রবণটি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। মাথার তালু ম্যাসাজ করুন ৫ মিনিট। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন চুল।
  • নিয়মিত আমলকীর তেল ম্যাসাজ করলে চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন বাড়ে ও চুলের বৃদ্ধি দ্রুত হয়।
  • মাথার ত্বকের চুলকানি দূর করে আমলকীর তেল।
  • চুলে ঝলমলে ভাব আনতে আমলকীর তেল কুসুম গরম করে মাথার তালুতে ম্যাসাজ করুন। তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

(সোর্স – বাংলা ট্রিবিউন)