কথা বলার সমস্যা

মানুষ যখন মনের ভাব অন্যের কাছে প্রকাশ করকতে চায় তখন তার ভাষা শ্রুতিমধুর, সুন্দর, সুমিষ্ঠস্বর, সুস্পষ্ট উচ্চারণ প্রত্যাশা করে। কিন্তু বিভিন্ন কারণে সে তার মনের ভাব সঠিকভাবে প্রকাশে ব্যর্থ হয় এবং দুঃশ্চিন্তায় ভুগতে থাকে। ক্রমান্বয়ে সমস্যা জটিল থেকে জটিলতর হতে থাকে। এসব জটিল সমস্যা দূর করার জন্য মানুষ দেশ থেকে বিদেশ যেত। বর্তমানে বিএসএমএমইউ (পিজি হাসপাতাল)- এ স্পীচ থেরাপী চালু করা হয়েছে। কথা বলতে সমস্যা হয় এমন রোগী এই দেশে অনেক চোখে পড়ে। শিশু যখন কথা বলতে পারে না তখন পরিবারের সবাই হতাশায় ভুগতে থাকেন। শিশুদের আধো আধো কথা থেকে সবাই আনন্দ উপভোগ করতে চায়। বিভিন্নভাবে মানুষ একে অন্যের সাথে যোগাযোগ করে। ভাষা এবং যোগাযোগ এক কথা নয়। শিশু জন্মের পর থেকেই বিভিন্নভাবে তার প্রয়োজন মেটায়। যেমন ক্ষুধা লাগলে কাঁদে, মা তার কান্না থেকে বুঝতে পারে শিশুর খাবারের প্রয়োজন। কিন্তু শিশু যখন আস্তে আস্তে বড় হতে থাকে তবুও কথা বলে না, তখন মা-বাবা দুঃশ্চিন্তায় ভুগতে থাকেন। শিশুর ভাষা শিখার গুরুত্বপূর্ণ সময় দেড় বছর থেকে চার বছর পর্যন্ত। যেসব শিশু সঠিক সময়ে, সঠিকভাবে কথা বলতে পারে না, শুধু তারাই নয়, শিশু থেকে বৃদ্ধ সব বয়সের মানুষের কথা বলার সমস্যা যেমন- তোঁতলানো, অস্পষ্ট উচ্চারণ, কক্তস্বর পরিবর্তন, জিহ্বা আটকানো, স্ট্রোক, নাকে স্বরে কথা, অতি চঞ্চল রোগীদের চিকিৎসা দেশেই সম্ভব।

কথা বলার জন্য কানে শোনা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আগে শোনা পরে বলা। শিশু বাক প্রতিবন্ধীতা নিয়ে জন্ম গ্রহণ করে না, শুনতে পায় না বলেই কথা শিখতে পারে না। সব বয়সী লোকেরই কানে শোনার সমস্যা থাকতে পারে। যে সব শ্রবণ প্রতিবন্ধী শিশুরা একেবারেই শুনতে পায় না তাদেরকে বিশেষ স্কুলে দেয়া যেতে পারে এবং অন্যান্য ছেলেমেয়েরা যা শেখে সেই একই বিষয় তারা যোগাযোগের বিশেষ পদ্ধতিতে শিখতে পারে। আর যেসব শিশু কিছু শুনতে পায় তাদেরকে স্পীচ থেরাপীর মাধ্যমে কথা শিখানো সম্ভব। পৃথিবীর প্রতিটি মানুষ কোন না কোন সমস্যায় ভুগে থাকেন। সমস্যা যখন জটিল আকার ধারণ করে তখন মানুষের মস্তিষ্কে চাপ পড়ে। মস্তিষ্ক আমাদের শরীরের সমস্ত কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। যেমন- কথা বলা, হাঁটা-চলা, চিন্তা-ভাবনা এসব। মস্তিস্কে প্রেসার এর কারণে স্ট্রোক করে। ফলে রোগীর বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। যেমন- সঠিকভাবে কথা বলতে না পারা, মুখ দিয়ে লালা আসা, অন্যের কথা বুঝা কিন্তু নিজে বলতে না পারা। এসব রোগীকে স্পীচ থেরাপী দিলে দ্রুত আরোগ্য লাভ করে।

সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক, জুন ২০, ২০০৯

ট্যাগস:

জুন ২৪, ২০০৯ | নাক কান গলা | ৪,৯৩৮ বার পঠিত | ২৩টি মন্তব্য

  • hafiz

    আমার বয়স ২৪ বছর । আমার তোতলামী সমস্যা আছে। আমি স্পীচ থেরাপী করেতছি আজকে ২ মাস যাবত। উপকার কোন কিছু বুঝতে পারছি না। এটা কত দিন আমাকে চালিয়ে যাইতে হবে একটু ধারনা দেওয়া যাবে কি।

    • এটা আপনার থেরাপিস্ট ভালো বলতে পারবেন। ডিপেন্ড করছে আপনি কি পরিমান শব্দগুলোতে ভুল করেন- তার উপর। একটি একটি করে সব প্রকার উচ্চারণ ঠিক করতে হবে।

      থেরাপী নেয়ার পাশাপাশি আত্মবিশ্বাস বাড়ান। এজন্য রেগুলার ব্যায়াম করুন। সুন্দর লাইফস্টাইল মেনে চলুন।
      অনেক সময় তাড়াহুড়া না করে ধীরে ধীরে কথা বললে তোতলামী কম হয়। চেষ্টা করে দেখতে পারেন।
      আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলা প্রাকটিস করতে পারেন।

  • hafiz

    ধন্যবাদ।

  • poly

    আমার নাম পলি , বয়স ২১ বছর। আমি যখন একা একা কথা বলি বা পড়ালেখা করি তখন আমার তোতলামী শুরু হয় না। কিন্তু কারো সামনে যখন কথা বলেত যাই তখন তোতলামী শুরু হয়। আমাকে এই বিষয়ে কোন উপদেশ দেওয়া যাবে কি? আমি এখন কি করব। অনেক সময় ভয়ে কারো সামনে যাইনা। কোন অনুষ্ঠানে যাই না। কারো সাথে মিশি না। আমি আমার বন্ধুদের সাথে যখন কথা বলি তখন তোতলামী হয় না, কিন্তু আমার কলেজের স্যার কিংবা দোকানে কিছু কিনতে গেল, অপরিচিত লোকের সামনে কথা বললে মুখ দিয়ে কথা বাহির হয় না, শুধু শ্বাস বাহির হয়। খুব মানুষিক কষ্টে আছি। দয়া করে সমাধান দিবেন। আমি আপনার উপদেশ মানার চেষ্টা করব।

    • আত্মবিশ্বাসের অভাব। আর আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর খুব সহজ উপায় হলো নিয়মিত ব্যায়াম করা।
      দৌড়ানো, যোগ-ব্যায়াম, ফ্রি হ্যাণ্ড ব্যায়াম।
      কোনো প্রকার টেনশন করবেন না।
      যখন বাইরে বের হবেন- নিজেকে বুঝাবেন- আপনার নিজের দুনিয়ায় আপনিই শাহেনশা।

  • kazol

    vai amar age 21. vai amar khotha bolar shomoy muak thaka thuthu bar hoi. r aer jonno anok apoman hota hoi. ki kora jai bolun to.

    • কথা বলার সময় উত্তেজিত হবেন না।
      চেষ্টা করুন ধীরে ধীরে কথা বলার।
      আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে এভাবে কথা বলা প্রাকটিস করুন।
      আত্মবিশ্বাসের অভাব থাকলে ব্যায়াম করুন।

  • জাহিদ

    আমার বয়স ১৮। আমার সমস্যা হল একটানা ১০ মিনিট কথা বললে গলা শুকিয়ে যায়।পরে কথা বলতে সমস্যা হয়।একটা সমাধান দিবেন?

  • আলেয়া

    স্যার আসছালামুআলাইকুম। আমার নাম সোহাগ। আমি এবার এসএসসি ভাল রেজাল্ট (এপ্লাস )নিয়ে পাশ করেছি। আমি একটি ভাল কলেজে পড়ালেখা করতে চাই। কিন্তু আমার সমস্যা হল । কারো সামনে গেলা কথা আটকে যায়। বুকের শ্বাস থাকে না। মুখ দিয়ে শ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। কথা বাহির হ্য়না। তখন মনে হয় মরে যাই। কি করব আমি নিজেও জানি না। আমাকে নিয়ে আমার পরিবারের প্রচুর আশার । আমার বাবা মা গরীব তবু আমাকে পড়ালেখা করিয়েছেন। আমি আমার এ তোতলামী সমস্যা থেকে মুক্তি চাই, এবং কিভাবে বাসায় প্রশিক্ষণ নিলে তোতলামী ভাল হবে এর একটা সমাধান চাই। দয়া করে সমাধানটা তারাতারি দিবেন।

    • প্রথমেই এভারগ্রীণ বাংলার পক্ষ থেকে অনেক অনেক অভিনন্দন!
      আপনি স্টুডেন্ট হিসাবে ভালো। তাই এমনিতেই আপনার আত্মবিশ্বাস ভালো থাকা উচিত। আত্মবিশ্বাস ভালো হলে এ ধরনের সমস্যা কমে যাবে। আত্মবিশ্বাস বাড়াতে ব্যায়াম বা খেলাধূলা করতে পারেন। কখনোই ভয় বা লজ্জা পাবেন না। মনে রাখবেন আপনার ভাল রেজাল্টের খবরে অন্য সবাই বরং মনে মনে আপনাকে সমীহ করে চলবে। তাই অন্যদের ভয় পাবার কিছু নাই। শরীর সোজা করে, বুক টান করে, মাথা উঁচু করে কথা বলবেন, পথ চলবেন।
      আপনার এই সমস্যা কি মানুষের সামনে গেলে হয় নাকি একা একা কথা বললেও হয়?
      বাসায় আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলা অনুশীলন করতে পারেন। আবৃতি শুনতে পারেন। শুনে শুনে ওভাবে কথা বলা অনুশীলন করতে পারেন। এতে ধীরে ধীরে উন্নতি হতে পারে।
      আর বয়স বাড়ার সাথে সাথে এমনিই এটা কমে যাবে।

      • ই, কে

        আপনি এটি করে দেখতে পারেন, আশা করি কাজ হবে : Mix half tea spoon of black granules/Nigella oil 2 spoons of honey and keep it on the tongue twice a day.

      • অলেয়া

        স্যার আমার উত্তর দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনি আমাকে জিজ্ঞাসা করেছেন যে এই সমস্যা কখোন হয়। সেই সমস্যা আমি যখন একা একা পড়ি তখন এই সমস্যা হয় না। বেশি লোকের মাঝে অথবা আমার প্রেরটিকেল ভাইবা তে এই সমস্যা পড়ি।

      • তার মানে আপনি আত্মবিশ্বাসের অভাবে নার্ভাস হয়ে যান বলেই এমন হচ্ছে। এটা আপনার মনের দূর্বলতা। মনকে বুঝান যে ভয় পাওয়ার কিছু নাই। নার্ভাস হবেন না কখনোই। নিয়মিত ব্যায়াম করেন, এসব ভয়, দূর্বলতা কেটে যাবে, ধীরে ধীরে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবেন।

  • Asif

    Assalmualikum Sir , Ami akjon Student , Amar age 19 , amar height 5′ 9″ and weight 70 . Ami jokhon kotha boli tokhon amar voice ta onek mota hoy . Ami ata test korar jonno mobile a amar kotha record kori . and sei record sune belive korte pari na je se ta amar voice . So ami kibabe amar voice ta onnano manusher moto normal korte parbo ..?? please help me…

    • বীর্যপাতের পর অনেক সময় স্বর মোটা হতে পারে। এছাড়া কৈশোর থেকে যৌবনে পদার্পণ করার সময়ও কন্ঠ পরিবর্তন হতে থাকে।

  • আরিয়ান

    স্যার তোতলামি সমস্যা দূর করার জন্য কি করবো ?
    কোন ঔষধ সেবন করা যাবে কি ?
    প্লিজ স্যার উওর দিন।

    • আত্মবিশ্বাস বাড়াতে হবে। স্মার্ট হতে হবে। মানুষের সামনে লজ্জা বা ভয় পাওয়া যাবে না। একা একা আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলা প্রাকটিস করবেন।

  • asif iqbal

    amake ki kuno solution deya jabe jeta follow korle amar voice ta normal and isposto hoye jabe ?

    • প্রথমেই আত্মবিশ্বাস বাড়াতে হবে। ভয় পেলে চলবে না। এজন্য নিয়মিত ব্যায়াম করুন। তারপর নিজে নিজে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে যেসব উচ্চারণ ভুল হয়, সেগুলো সঠিক ভাবে বলার চেষ্টা করে যাবেন। কারো সাহায্যও নিতে পারেন যিনি ঠিক হচ্ছে কিনা, ধরিয়ে দেবেন।

      • নিকশ আধার

        স্যার, খুলনার ভালো কোন স্পিচ থেরাপিস্টের যোগাযোগের ঠিকানা দিতে পারেন ? প্লিয , আমাকে কোন ঠিকানা বলুন।

      • দুঃখিত, আমাদের জানা নেই।

  • islam

    স্যার আমার বয়স ২৮ কিন্তু আমার কন্ঠ টা একদম চিকন অনেকটা মেয়েদের মত এখন আমার কন্ঠ সাভাবিক করতে হলে কি করা উচিৎ |কোন ঔষধ সেবন করা যাবে কি?

    • ডাক্তার দেখাতে পারেন।